ছিন্নবীণা ২


আগের পর্ব


যারা কাজ পরে করে, তারা কর-পরেট !

কী করবো বল, এই পোড়া IT Sector-এ রাত ৮-টার আগে তো কাজের চাপ পড়তেই দেখিনা।

আর এই খামকা বাজে কাজের উটকো চাপ বাঁচাতে দেখি, আশেপাশে পালাই পালাই রব। কেউ উচ্চশিক্ষা, তো কেউ ব্যাবসা। যারা উচ্চশিক্ষা, তাদের মধ্যে কেউ আবার উচ্চশিক্ষা করে ব্যাবসা। আর তার সাথে মাথা উঁচু flat, আর গাড়ি, আর না জানি কী।

জয় বাবা বিশ্বকর্মা ! তুমি না থাকলে কত কী পেতাম না। না আমি rowdy গুঁফো style বলছি না, ওটার জন্য Akshay/Salman আছে, বলছি এই আর্কিটেক্ট আর ডিজাইনারদের কথা। এই বাড়ি, গাড়ি, এই চারটে বন্ধুর সাথে রেস্তরায়ে গিলে আসা, যদিও এটাই সব নয়, এবং রাত্রে ঘুমের আগে নিজের এই অখাদ্য জীবনটা নিয়ে “কিচ্চু হবে নাহ !” ভাবলেই সব শেষ হয়ে যায়ে না, তাও মাঝে মাঝে ভাবি, এটাই কি আমি?

এটাই কি সব? কি চাইছি আমি বা আমরা? জাস্ট এই মেকি সুখ? আর তার পেছনে এত এত EMI-এর চোখ নাচানো? আমরা আজ totally confused।

‘ত্বাস্তর’ – এই confusion তৈরি করার একটাই অস্ত্র আছে, ত্বাস্তর। এ অস্ত্র আর কারুর নয়, বিশ্বকর্মার।

সব খারাপ, কিন্তু, সবই খারাপ কি? এই যে উঁচু ছাদগুলোতে দাঁড়িয়ে আমরা ঘুড়ি ওড়াই, খারাপ?

এই যে পুরনো গানগুলো আবার ফিরে আসে, খারাপ?

তুমি আর্কিটেক্ট। শুধু স্বর্গ, ত্রিপুর, লঙ্কা, ইন্দ্রপ্রস্থের-ই নয়ে, তুমি আর্কিটেক্ট এখনকার আমাদের জীবনধারার, আমাদের নতুন ফ্লাই-ওভার, আর আমাদের তার জন্যে রাস্তায় জ্যামেরও। তোমার ওপর ভরসা রেখেই আমরা গোঁত্তা খেতে খেতে অফিস যাচ্ছি, তাও ভাবছি, তুমি থাকলে ‘আচ্ছে দিন’ আসবেই!

তুমি “হাতি বাঁচাও” আন্দলনের মুখপাত্র, এবং পাড়ায়ে পাড়ায়ে Daler Mehndi-র গান চালানোরও পেছনে আছো।

তুমি বছরে একবার আসো বলেই রিক্সা-কাকু, অটো-কাকুরা, আমাদের সবার আগে celebrate করতে পারে; পরে অবশ্য তার দাম আমিই দেই, তবে এই রেজাল্ট দেখে তবে না মা দুগগা আসতে ভরসা পায় !

তুমি হার্ডওয়্যার নিয়ে Multi-tasking গুরু, তাই জন্যেই তো ইন্দ্রপ্রস্থে তোমার পুকুরে দুর্যোধন পড়ে গিয়ে episode-episode যুদ্ধ শুরু !

তুমি খালি গায়ে, ধুতি পরে, হাতি চড়ে smart…

আরে তুমি আর ১৫-ই আগস্ট আছে বলেই না, ঘুড়ি ওড়ানোটা আর্ট !

যাক, outlook-এ মেল এসেছে, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার কিনা, আমাদের ছুটি নেই, তোমরা ওড়াও, আমি…

3 Replies to “ছিন্নবীণা ২”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *