মেসি

ছোটবেলায় আলিফ লায়লা বলে একটা সিরিয়াল হত ডি ডি তে, বেসিক্যালি আরব্য রজনী। একটা এপিসোড আজও মনে আছে। সিন্দবাদ একটা চোরাবালির মত কিছু তে কোমর অবধি তলিয়ে আছে, আস্তে আস্তে তলিয়ে যাচ্ছে আরও। হাতে একটা ধনুক, আর একটাই তীর। সামনে একটা পাখি জাতীয় কিছু ঘুরছে, সেটার চোখে মারতে পারলে বেঁচে যাবে, আর ফসকালেই শেষ। সোজা তলিয়ে যাবে। আগের 2 টো তীর ফসকে গেছে, এটাই শেষ সুযোগ। সিন্দবাদের কপালে ঘামের ফোঁটা। নিজের নার্ভকে আয়ত্তে এনে নিজের অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই করতে হবে। একটাই সুযোগ। read more

পয়লা বৈশাখ

কথায় বলে অন্ধের কি বা দিন, কি বা রাত। আমরা যারা লক্ষীসাধনায় মগ্ন হয়ে হত্যে দিয়ে বাইরে পরে আছি, আমাদের একই অবস্থা প্রায়। কবে পয়লা বোশেখ, কবে পঁচিশে, এক্সেল শীট, প্রজেক্ট ডেডলাইন আর কেপিআইয়ের চক্করে সব ঘেঁটে ঘ হয়ে যায়। একটা নিয়মে নিজেকে বাঁধতে বাঁধতে কবে যে নিয়ম-দাস হয়ে গেছি, টের ও পাইনি। মাস পয়লার মোটা মাইনে আর দিনান্তে স্কচের অমোঘ টানে নিজেকে কবেই যেন আস্তে আস্তে হারাতে শুরু করেছিলাম। আমার মধ্যের আমিটা সব ছেড়ে-ছুঁড়ে বারবার পালাতে চেয়েছে, আর তাকে আটকে রেখেছে বাইরের আমি। তাই পয়লা বৈশাখের নতুন জামা, আর পঁচিশের দিন শেষের কবিতা হাতে নিয়ে সারাদিন কাটিয়ে দেওয়ার বিলাসিতা চিন্তার বাইরে আর বেরোতে পারেনি। read more

লাল পাহাড়ির দেশে

রাস্তাটা সত্যিই সুন্দর। একে-বেঁকে এগিয়ে গেছে। জন মানুষ নেই, গাড়ি – ঘোড়া ট্রাফিক জ্যাম নেই, বিষাক্ত বাতাস নেই, আর অসহ্যকর হর্নের আওয়াজ ও নেই। দুপাশে জঙ্গল, খানিকটা দূরে দূরে পুরুলিয়ার ট্রেডমার্ক টিলা পাহাড় চোখে পরছে। আজ সকালেই আমরা এসে পৌঁছেছি বরন্তী – তে। পুরুলিয়া জেলার এই গ্রাম,কলকাতাবাসীদের উইক-এন্ড গন্তব্য হিসেবে চমৎকার। বিশাল বড় একটা লেক, জঙ্গল, ছোট ছোট টিলা পাহাড় আর সর্বোপরি অপার শান্তি।

সিনেমার কুইজ – ৪

ক - অভিনেতা হিসাবেই তিনি মূলত পরিচিত , তিনি বেশ কিছু ছবি পরিচালনাও করেছেন । তার মধ্যে দুটি হিন্দি ছবি হল : খ (যাতে গ অভিনয় করেন) এবং ঘ (যাতে চ অভিনয় করেন)।

প্রাক্তন- The Former

হঠাৎ দেখা রেলগাড়ীর কামরায় হঠাৎ দেখা, ভাবিনি সম্ভব হবে কোনোদিন..। – রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর

জামাইষষ্ঠীর রেসিপি

মাটন কষানো হয়ে গেলে ভাজা আলুগুলো ওর মধ্যে তুলে দিয়ে বাকি জলটা দিয়ে দিন এবং ঢাকনা চাপা দিয়ে আঁচ কমিয়ে রাঁধুন। মাটন আর আলু সেদ্ধ হয়ে গেলে আঁচ থেকে নামিয়ে ডিম চিরে সেইগুলো দিয়ে সাজিয়ে গরম ঘি-ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন।

সিনেমার কুইজ – ২

আশা করি আমার গত সপ্তাহের সিনে-ধাঁধাটা ভালো লেগেছে – যদিও খালি একটাই রেসপন্স দেখতে পাচ্ছি. এবার জবাব এর পালা –

পুরো প্রশ্ন টা পড়ে সব থেকে জরুরি ছিল কোনো অংশটার উত্তর সোজাসুজি পাওয়া যায়ে: একটু ‘গ’ এর অংশটা দেখা যাক – এক মহিলা যার ছবি অস্কার এর জন্যে এ মনোনীত হয়েছিল – ভারতীয়দের এই কীর্তি একজনেরই  : মীরা নায়ার, ছবির নাম সালাম বম্বে;তাহলে ‘গ’ – মীরা নায়ার।
এবার যদি আমি ‘খ’ এর খোঁজে যাই তাহলে দেখা যাবে ভারতীয় ছবি অস্কার এ মনোনীত  হয়ে ৩ বার – পঞ্চাশএর  দশক এ “মাদার ইন্ডিয়া” , ৮৮তে  “সালাম বম্বে” এবং ২০০১ এ “লাগান”. মাদার ইন্ডিয়া র পরিচালক মেহেবুব খান আর মীরা নায়ার এর একসাথে অ্যাসিস্ট্যান্ট হওয়াটা কিছুটা অবাস্তব কারণ দুই পরিচালক এর কাজের সময়কাল ভিন্ন – সেখানে মীরা নায়ার এবং আশুতোষ গাওরিকার (লাগান এর পরিচালক) সমসাময়িক. সেই সুত্রে আমরা ধরে নিতে পারি যে ‘খ’ : আশুতোষ গাওরিকার।
এরপর যদি দেখা যায়ে কোন পরিচালক আশুতোষ গাওরিকার এবং মীরা নায়ার এর অ্যাসিস্ট্যান্ট ছিলেন তাহলে তার উত্তর একটাই – কিরণ রাও, তাই ‘ক’ – কিরণ রাও (আমির খান এর স্ত্রী।
এবার ‘ক’ ধরে সোজাসুজি যেই যেই অংশে আমরা যেতে পারি – তাহলো ‘ঘ’ : যেই ছবি তে ‘ক’ অভিনয় করেন এবং ‘জ’ : যেই ব্যক্তি ‘ক’ এর কাজিন।
ব্যাপারটা খুবই সহজ হয়ে যায় কারণ কিরণ রাও এর একমাত্র অভিনয় (খুবই ছোট চরিত্রে) “দিল চাহতা হায়” এবং কিরণ এর একমাত্র আত্মীয় যে ফিল্ম জগতে আছেন তিনি হলেন অদিতি রাও হায়দারী।
সেই সুত্রে ‘ঘ’ – দিল চাহতা হায়
‘জ’  – অদিতি রাও হায়দারী।
বাকি রইলো ‘চ’ আর ‘ছ’. ‘চ’ এর পরিচয় তিনি ‘ঘ’ অর্থাত “দিল চাহতা হায়” এর পরিচালক – তাই তিনি ফারহান আখতার
‘ছ’ হলো ‘চ’ আর ‘জ’ এর অভিনীত ছবি – অর্থাৎ ফারহান আখতার এবং অদিতি রাও হায়দারী র ছবি – তারা একটি ছবিই আজ অবধি একসাথে করেছেন – “ওয়াজির” ।
‘চ’ – ফারহান আখতার
‘ছ’ – ওয়াজির read more

সিনেমার কুইজ – ১

আমি সর্বজিত – বন্ধুদের অনুরোধে ‘ও কলকাতা’র জন্য শুরু করছি এক বিশেষ নিয়মিত বিভাগ।কুইজ তো আপনারা অনেকেই ভালোবাসেন – আর সিনেমা ভালোবাসেন না এরকম খুব কম লোকজনকেই আমি চিনি। এই দুই পছন্দের বিষয়ের ওপর তৈরি করেছি এই নতুন ধরনের কুইজ। read more