বর্ষা, কলকাতা আর আমি

হোম-অফিস হওয়ার মজা হল, রোজ রাস্তায় বেরতে হয়না। অফিস টাইমের ভীড়, ঘামের গন্ধ ভরা বাস, হঠাৎ থেমে যাওয়া মেট্রো রেল , অটোরিকশা বা ট্যাক্সি স্ট্রাইক, কিছু নিয়েই খুব একটা মাথা ঘামাতে হয়না। কিন্তু এর একটা কুফল ও আছে। মাঝেমধ্যে কাজের চক্করে বেরোতে হলে পুরো ঘেমে-নেয়ে-কেস-খেয়ে একশা কান্ড। তার মধ্যে যদি আবার বৃষ্টি পড়ে, ঝড় ওঠে বা মিটিং-মিছিল থাকে, তাহলে তো হয়েই গেল। আমি পুরো, ইংরেজিতে যাকে বলে, ‘ক্লু-লেস’ সেটাই হয়ে যাই। তখন আমাকে দেখে কে বলবে এই আমি লোকাল ট্রেনে ডেলি-পাষন্ডগিরিও করেছি। এই তো গত সপ্তাহে অনেকদিন পরে কাজে বেরোতে হয়েছিল। দুপুর বেলা মেট্রো করে পার্ক স্ট্রীটে নেমে, ওপরে উঠে  দেখি বেশ বৃষ্টি হচ্ছে। তার মধ্যে আবার ফোনটা কাজ করা বন্ধ করে দিল। আমি একগাদা সিঁড়ি বেয়ে ওপরে উঠে, বহুদিনে অনভ্যাসের ফলে পার্ক স্ট্রীটে মেট্রোর মুখ কোন দিকে খোলে, সেটা সম্পূর্ণ ভুলে গিয়ে, মাথার ওপর ছাতা খুলে, উলটো বাগে হাঁটা লাগালাম, আর ভাবতে থাকলাম- একি! মোড় থেকে স্টেশনের মুখ এত দূরে ??  প্রায় মিনিট পাঁচেক পরে বুঝতে পারলাম আমি কি কেলোটাই না করেছি। অগত্যা, আবার পেছন ফিরে হাঁটা লাগাতে হল। read more