ও কলকাতা

দিল্লীকা লাড্ডু ও এক বান্ডিল ভূত

April 21, 2019 No comments

কিভাবে ভোটে দাঁড়াবেন না

April 13, 2019 No comments

কোলাজ কোলকাতা (১)

June 11, 2016 No comments

প্লুটোর ইন্টারভিউ

June 8, 2016 No comments

দাদা বৌদি সংবাদ

বিয়ের পর বিদেশে প্রথম লাঞ্চ।

দাদা – “কোন কুইজিন পছন্দ তোমার – ইটালিয়ান, মেক্সিকান, থাই?”

বৌদি – “ইয়ে মানে, এখানে একটু গরম ভাত, ঘি আর মুসুর ডাল পাওয়া যায় না?”

দাদা – “এটা কিংস ক্রস স্টেশন – শিয়াল’দা নয়।”

বৌদি – “না মানে, চেষ্টা করতে ক্ষতি কী?”


 বিয়ের পর প্রথম পুজোয়।

দাদা – “এবার পুজোয় কী নেবে – বাহা শাড়ি, আনারকলি কুর্তা না প্যালাজ্জো প্যান্ট?”

বৌদি – “সপ্তমীতে জিশান, অষ্টমীতে বেলুড়ের ভোগ, নবমীতে বিজলী গ্রিল, দশমীতে মিহিদানা।”

দাদা – “বাহ বাহ, এইটা এক্কেবারে রাজ-যোটক মিলেছে দেখি আমাদের। ভয় পাচ্ছিলাম শপিং করে না জানি কত খসবে।”

বৌদি – “উঁহু, আনারকলি পরে জিশান, বিজলি গ্রিলে প্যালাজ্জো আর বাহা শাড়িতে মিহিদানা – বলছিলাম আর কী!”


 বৌদি – “আজ আবার তুমি টিফিন ফেরত এনেছ?”

দাদা – “রাগ করো না, লক্ষ্মীটি – এক বন্ধুর ট্রীট ছিল।”

বৌদি – “তা কী খাওয়া হল শুনি?”

দাদা – “ঐ কেএফসি বাকেট অর্ডার করেছিল।”

বৌদি – “তাও যদি অনাদির মোগলাই কী কবিরাজি কিংবা নিদেনপক্ষে কফি-হাউসের পকোড়াও বলতে, হয়তো মাফ করে দিতুম।”

দাদা – “এখন উপায়?”

বৌদি – “এক্ষুনি এগ মাটন রোল এনে ভজনা কর, নইলে হেঁসেল বন্ধ।”


দাদা – “হ্যালো?”

বৌদি – “হ্যাঁ শুনছো, বলছি তোমরা মা তো এক সপ্তা বাইরে যাচ্ছেন?”

দাদা – “তো?”

বৌদি – “আমার বন্ধুদের সাথে কিটি পার্টিটা সেরে ফেলি?”

দাদা – “মেনুতে কী থাকবে?”

বৌদি – “আলুর চপ, ঝালমুড়ি, পেঁয়াজি, চিংড়ির চপ আর চা।”

দাদা – “এই আমিও এই ফাঁকে পেটব্যাথা হচ্ছে বলে অফিস থেকে কেটে পড়ি?”


দাদা – “হ্যাঁ গো, আজ তুমি টিফিনে কী দিলে?”

বৌদি – “বলব না।”

দাদা – “সে কী, বলই না?”

বৌদি – “আগে বল – পুরোটা নিজে খাবে, বন্ধুদের খাওয়াবে না?”

দাদা – “ওহহো, এত সাসপেন্স না করে বলই না কী দিলে, দেরি হয়ে যাচ্ছে যে।”

বৌদি – “পরোটা আর কিমার ঘুগনি।”

দাদা – “লাঞ্চ-বক্স দেখার পর থেকে তুমি কত বদলে গেছ, মানু।”


 

পোস্টটি শেয়ার করুন



Leave a Reply

avatar
  Subscribe  
Notify of