ও কলকাতা

কোলাজ কোলকাতা (১)

June 11, 2016 No comments

প্লুটোর ইন্টারভিউ

June 8, 2016 No comments

ফ্যাশন টিভি

June 1, 2016 No comments

ফলসা, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, গৌরী সেন ইত্যাদি

May 26, 2016 2 comments

বদলা নয়, বদল চাই

সিনেমার নাম – বদলা , পরিচালক সুজয় ঘোষ। অভিনয়ে অমিতাভ বচ্চন, তাপসী পান্নু, অমৃতা সিং।

খবর পেলাম যে বদলার বাজার গরম। কাজেই হালকা শীত এবং লঙ উইকেন্ডের ফাঁকে এক ঝলক ঢুঁ মারা গেল সিনেমাহলে। বিদেশে বসে হলে সিনেমা দেখতে গিয়ে একটা ব্যাপার লক্ষ্য করেছি যে যতই খাজা সিনেমা হোক না কেন, দেশের টানে সে অভিজ্ঞতা একটা অন্য আমেজ নেয় – মানে আগে করেছি বেশ কয়েকবার। তার মানে অবশ্য এই নয় যে সিনেমাটা জমে নি – আগেই বলে নিলাম যে প্রবাসী হিসেবে একটু পক্ষপাতদুষ্ট হয়ে যেতে পারে আর কি।

থ্রিলার সিনেমার রিভিউ লিখতে বসলে গল্প নিয়ে কিছু বলা মানে শাঁখের করাত – তবু কিছুটা বলি। একদিকে দেখতে গেলে কোর্টরুম ড্রামার প্রাক্বালে ঘটে যাওয়া ঘটনার বিশ্লেষণ আর আইনের মারপ্যাঁচ আবার অন্য দিকে কোনও গোয়েন্দা গপ্পের কম নয়। গল্প বলার স্টাইলের মধ্যে লুকিয়ে আছে অনেক খুঁটিনাটি ঘটনা। নয়না একজন অল্পবয়স্ক সফল এন্টারপ্রেনর – নিজের কোম্পানির সাফল্যের কারিগর। কিন্তু সেই সাফল্যের অন্তরালে মিশেছে পরকীয়া প্রেমিকের খুনের অভিযোগ। পুলিশের কাছে নজরবন্দী, পরিবারের কাছে অপাংক্তেয় নয়না শেষ ভরসা হিসেবে কথা বলতে শুরু করে নামী উকিল বাদল গুপ্তার সাথে। বাদল ওরফে অমিতাভের কথাবার্তায় উঠে আসে অনেক বিশ্বাসঘাতকতা, ক্ষণভঙ্গুর সম্পর্ক ও প্রতিশোধস্পৃহা। সেই সঙ্গে প্রৌঢ় আইনজীবীর অভিজ্ঞতার সিঁড়ি ভেঙ্গে উঠতে থাকে । কিন্তু এই গল্প তৈরি হয়েছে ও ভেঙেছে একাধিকবার – এবং সেটাই দেখার।

সিনেমার নামটা শুনে যখন”বদলা নয়, বদল চাই’ টাইপের জ্বালা ধরানো ডায়লগ মনে পড়ে, তখন পরিচালক যে সেই সুযোগটা নেবেন না তা তো আর হয় না। কাজেই গোটা সিনেমা জুড়ে আস্ফালন বেশ প্রকট – এ বলে আমায় দেখ তো ও বলে আমায়। গরমা গরম বুলি ঝেড়েছেন প্রায় সব্বাই। অমৃতা সিং কে অনেক দিন পরে সিনেমার পর্দায় বেশ ভালো লাগল। যতটুকু স্ক্রিন টাইম পেয়েছেন, পুরোটাই দারুণভাবে সদব্যবহার করেছেন। ঠাগস অফ হিন্দুস্তানে বুড়ো ঘোড়া হিসেবে ডোবালেও, এবার ব্যাটিং পিচ পেয়ে অমিতাভ ভালো টেনেছেন গোটা সিনেমাই; বিশেষ করে সারা সিনেমা জুড়ে যখন উনি একটা স্টুডিও এপার্টমেন্টের চৌহদ্দিতে সীমাবদ্ধ। লোকেশন তাঁর সাবলীল অভিনয়কে আটকে রাখতে পারেনি।

স্প্যানিশ সিনেমা ‘দি ইনভিসিবল গেস্ট’ থেকে অফিশিয়ালি অনুপ্রাণিত – এরকম একটা খবর বাজারে আছে। আমি যেহেতু স্প্যানিশ সিনেমাটি দেখিনি, কাজেই সেই মূর্খতার সুযোগ নিয়ে তুলনার মধ্যে না গিয়ে নিরপেক্ষভাবে বলতেই পারি যে পরিচালনার কাজটুকু বেশ মুনশিয়ানার সাথেই করেছেন সুজয়। সংলাপের ফাঁকে ফাঁকে ফ্ল্যাশব্যাকের বাঁধনে যে আসল গল্পটা তৈরি হয়েছে, সেখানে কোন ভুলচুক নেই। একটা ভালো গল্প বলতে গেলে দরকার প্রোটাগনিস্টের মত অ্যান্টাগনিস্টের ভূমিকা কিছু কম নওয়। সেই প্রসঙ্গে একটা কথা বলে শেষ করব। তাপসী প্রচণ্ড সাবলীল, স্মার্ট আর ঝকঝকে সব মেনে নিলেও, চিত্রনাট্য তাঁর কাছে যে ক্রূরতা দাবী করে তার দাবী উনি কতটা মেটাতে পেরেছেন – সে বিষয়ে আমার অন্তত কিছুটা সন্দেহ আছে। আইনি লেন্স আমার নেই – কাজেই সমাপতনটা এক্কেবারে ফটোফিনিশ হল নাকি সামান্য গোঁজামিল রয়ে গেল, তার মূল্যায়ন রুচিশীল দর্শক হিসেবে আপনারা করবেন বলেই মনে হয়।

সব মিলে সিনেমা তো জমজমাট, আমার তরফ থেকে থাম্বস আপ। কিন্তু ভয় হয় আজকালকার যা গরম বাজার, কিছু ভালো বা মন্দ বলতে গেলে; কেউ না কেউ রে রে করে ছুটে আসবেই। সার্ফ এক্সেলের বিজ্ঞাপন দেখে যদি মাইক্রোসফটকে খিস্তি খেতে হয়, পৃথিবীতে যদি যৌণধর্ম নামের কোন ধর্ম প্রচারিত হয়ে থাকে, তাহলে এই নিরীহ লেখা থেকেও যুদ্ধটুদ্ধ লেগে যেতে পারে। তাই মোদ্দা কথাটা হচ্ছে এই যে, বদলা নয়, …।

পোস্টটি শেয়ার করুন



2
Leave a Reply

avatar
1 Comment threads
1 Thread replies
0 Followers
 
Most reacted comment
Hottest comment thread
2 Comment authors
অভ্র পালইন্দিরা মুখোপাধ্যায় Recent comment authors
  Subscribe  
newest oldest most voted
Notify of
ইন্দিরা মুখোপাধ্যায়
Guest

বেশ লিখেছ। অনেকদিন পর তোমার লেখা পড়লাম। সিনেমা দেখার ইচ্ছে রইল।